রাজশাহী কলেজ বিএনসিসি ইউনিট

রাজশাহী কলেজ উইকি থেকে

রাজশাহী কলেজ বিএনসিসি বি কোম্পানীর সদর দপ্তর।

বিএনসিসি প্রতিষ্ঠা[সম্পাদনা]

বিএনসিসি প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের অধীনস্ত একটি সংস্থা। দেশের যুব সমাজ তথা স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের লেখা পড়ার সাথে সামরিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জ্ঞান ,শৃংখা ও একতার সাথে উদ্ধুদ্ধ করে যোগ্য নাগরিক হিসাবে গড়েতোলার লক্ষ্যে বিএনসিসি প্রতিষ্ঠা করা হয়।

বিএনসিসি ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯২৩ সালে ইন্ডিয়ান টেরিটোরিয়াল ফোর্স (আই টি এফ) এ্যাক্ট পাশ হবার পর কতিপয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউনিভার্সিটি ট্রেনিং কোর (ইউটিসি) স্থাপিত হয়। ১৯২৮ সালের জুন মাসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউটিসি আনুষ্ঠানিক ভাবে চালু করা হয়। ১৯৪৩ সালে এ সংগঠনের নাম পরিবতন করে ইউনিভারসিটি অফিসার্স্ ট্রেনিং কোর (ইউ ও টি সি) করা হয়। ১৯৬৬ সালে জুনিয়র ক্যাডেট কোর (জে.সি ও) প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে ইউওটিসির সদস্যবৃন্দ দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে অসীম সাহসিকতা ও বজ্রকঠিন দৃঢ়তা নিয়ে স্বাধীনতা যুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহনের মাধ্যমে এ কোরের গৌরব ও ঐতিহ্য সমুন্নত রাখেন।

১৯৭৬ সালের মাসে বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনায় ঢাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা উত্তর প্রথম প্রশিক্ষন শিবির অনুষ্ঠিত হয়। তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ৩১ মার্চ ১৯৭৬ তারিখে প্রশিক্ষন শিবিরে আনুষ্ঠানিক কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ করেন। ১৯৭৬ থেকে ১৯৭৮ পর্যন্ত ইউওটিসি, বিসিসি, জেসিসি এর ক্যাডেটগণ জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মকান্ডে বিশেষ কৃতিত্বের পরিচয় দেয়ায় শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান উপরোক্ত সংগঠন গুলোর কার্যক্রম আরো সম্প্রসারিত ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে ২৩ মার্চ ১৯৭৯ তারিখে সরকারী আদেশবলে সংগঠন গুলোকে একিভূত করে বাংলাদেশ ন্যাশন্যাল ক্যাডেট কোর (বি এন সি সি) গঠন করেন।

রাজশাহী কলেজ বিএনসিসি[সম্পাদনা]

বর্তমানে রাজশাহী কলেজে ৩টি প্লাটুন রয়েছে তন্মধ্যে একটি মহিলা প্লাটুন। উল্লেখ্য যে, রাজশাহী কলেজ বিএনসিসি ইউনিট বি কোম্পানীর সদর দপ্তর। বি কোম্পানীর দায়িত্ব প্রাপ্ত শিক্ষক- মো: আতাউর রহমান।